পরীক্ষা মূলক আপডেট

চট্টগ্রামে ৩টি ইটভাটা উচ্ছেদ, সরকারি ১৫০ একর জমি উদ্ধার

রিপোর্টারের নাম
  • আপডেটের সময়: মঙ্গলবার, ডিসেম্বর ৮, ২০২০
  • 75 পাঠক
চট্টগ্রামে ৩টি ইটভাটা উচ্ছেদ, সরকারি ১৫০ একর জমি উদ্ধার

চট্টগ্রাম নগরের বঙ্গোপসাগরের তীরবর্তী এলাকা এবং সিডিএ লিংক রোড সংলগ্ন এলাকায় সরকারি খাস জমি দখল করে গড়ে তোলা তিনটি ইট ভাটা উচ্ছেদ করে প্রায় ১৫০ একর সরকারি খাস জমি উদ্ধার করা হয়েছে।

আজ মঙ্গলবার দুপুরে জেলা প্রশাসন ও পরিবেশ অধিদফতর যৌথভাবে উচ্ছেদ অভিযান পরিচালনা করেন। অভিযানে নেতৃত্ব দেন চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. উমর ফারুক। এ সময় উপস্থিত ছিলেন পরিবেশ চট্টগ্রামের আঞ্চলিক পরিচালক মোয়াজ্জেম হোসেন ও চট্টগ্রাম মহানগর পরিচালক নুরুল্লাহ নূরী।

নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. উমর ফারুক বলেন, ‘উত্তর কাট্টলীর বঙ্গোপসাগরের তীরবর্তী সংরক্ষিত বনাঞ্চলের পাশের প্রায় শতাধিক একর সরকারি খাস জমি দখল করে দুটি এবং বায়েজিদ-ফৌজদারহাট লিংক রোড এলাকায় সরকারি খাস জমি দখল করে একটি মোট তিনটি ইটভাটা গড়ে তোলা হয়।
আজ অভিযান চালিয়ে তিনটি ইটভাটা উচ্ছেদ করে প্রায় ১৫০ একর সরকারি খাস জমি উদ্ধার করা হয়। উদ্ধারকৃত জায়গা দখলমুক্ত রাখতে সীমানা চিহ্ন এবং খুঁটি স্থাপন করা হয়েছে।’

জেলা প্রশাসন সূত্রে জানা যায়, উত্তর কাট্টলী বঙ্গোপসাগরের তীরবর্তী সংরক্ষিত ম্যানগ্রোভ বনাঞ্চলের নিকটবর্তী প্রায় শতাধিক একর সরকারি খাস জায়গা ঘিরে গড়ে ওঠে দুটি ইটভাটা। ২০১৩ সালে এগুলো উচ্ছেদে কার্যক্রম শুরু হয়। পরে অবৈধ দখলদাররা হাইকোর্টে রিট দায়ের করেন। ফলে সরকারি খাস জায়গা উদ্ধার এবং ইটভাটা উচ্ছেদ কার্যক্রম স্থবির ছিল।

সম্প্রতি সরকার পক্ষে সরকারি খাস জায়গায় অননুমোদিতভাবে বঙ্গোপসাগরের তীরবর্তী সংরক্ষিত ম্যানগ্রোভ বনাঞ্চলের কোল ঘেঁষে গড়ে উঠা পরিবেশ বিনষ্টকারী ইট ভাটাগুলোর বিষয়ে মহামান্য হাইকোর্টের নজরে আনলে আদালত জমির মালিকানা না থাকা, সরকারি খাস জায়গায় ইটভাটা স্থাপনের যৌক্তিকতা না থাকা ও পরিবেশ আইন বিরোধী হওয়ায় ইটভাটাগুলো নিয়ে দায়েরকৃত রিট খারিজ হয়।

এর প্রেক্ষিতে চট্টগ্রামের জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ ইলিয়াস হোসেনের নির্দেশে এবং পরিবেশ অধিদফতর, চট্টগ্রামের যৌথ উদ্যোগে উচ্ছেদ অভিযান পরিচালনা করে সরকারি জায়গা দখলমুক্ত করা হয়।

Please Share This Post in Your Social Media

এ বিভাগের আরো খবর

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *