সুনীলের জোড়া গোলে দোহায় লাল-সবুজের আশাভঙ্গ

Reporter Name
  • Update Time : মঙ্গলবার, ৮ জুন, ২০২১
  • ২৩ Time View

ভারতীয় ফরোয়ার্ড সুনীল ছেত্রীর জোড়া গোলে ২-০ গোলে হেরে দোহায় আবারও লাল-সবুজের আশাভঙ্গের কাহিনী।

সেই ২০১৩ সালে কাঠমান্ডু সাফ ফুটবলেও এক গোলে এগিয়ে থাকা বাংলাদেশের জালে শেষ মুহূর্তে গোল ম্যাচ ড্র করেন এই ফরোয়ার্ড। এক বছর বাদে গোয়ায় প্রীতি ম্যাচেও লিডে থাকা বাংলাদেশকে হতাশ করেন সুনীল। মাঝে কলকাতায় বিশ্বকাপ বাছাইপর্বের ম্যাচে গোলহীন থাকলেও কাল আবার ভয়ংকর রূপে হাজির হয়ে হতাশার পেরেক ঠুকে দিয়েছেন বাংলাদেশের ফুটবলে।
বিশ্বকাপ বাছাই এবং এশিয়ান কাপ বাছাইয়ের সোমবারের খেলায় আক্রমণে ছিল না কোনো পরিকল্পনা, তাই
লাল-সুবজের কেউ ভয়ংকর হয়ে উঠতেও পারেননি। উল্টো দুই মিনিটে রাকিব হোসেন ব্রেন্ডন ফার্নান্দেজকে ফাউল করে হলুদ কার্ড দেখে নিজে হুমকি হয়ে পড়েন দলের জন্য। পরে আরো কয়েকটি ফাউল করে তিনি ভয় ধরিয়ে দিলেও বড় অঘটন হয়নি।

ভারতের কর্নার কিক মানেই বিপদের ঘনঘটা। তাদের দীর্ঘদেহী ফুটবলাররা অবলীলায় হেড করেন। ৩৯ মিনিটে অবশ্য রহমতের লং থ্রোয়ে তারেক কাজীর নিরীহ হেড গ্রিপে নেন ভারতীয় গোলরক্ষক। বিরতিতে যাওয়ার আগে এটাই একমাত্র লক্ষ্যে শট বাংলাদেশের।

বিরতির পর ম্যাচটা হয়ে ওঠে সুনীলময়। বাতাসে উড়ে আসা বলে বারবার পরাস্ত হচ্ছিলেন তপু-রিয়াদ-রহমতরা। ৬৩ মিনিটে প্রথম ব্রেন্ডনের ফ্রি-কিকে ফাঁকায় দাঁড়িয়ে সুনীল ছেত্রী বাইরে হেড করায় সেই যাত্রায় রক্ষা হয়। কিন্তু ৭৯ মিনিটে আর ভুল করেননি। আশিক কুর্নিয়ানের বাঁ দিক থেকে পাঠানো ক্রসটি কঠিন কোণ থেকেই তিনি রাখেন পোস্টে।

ইনজুরি টাইমে আরেক গোল হজম করে বাংলাদেশ। এবার লেফটব্যাক রহমত পরাস্ত সুরেশ সিংয়ের কাছে, তাঁর কাটব্যাকে সুনীল বক্সের ভেতর থেকে আনিসুর রহমানকে সহজে পরাস্ত করেন।

Please Share This Post in Your Social Media

More News Of This Category

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *