ম্যারাডোনাকে হত্যা করা হয়েছে!

Reporter Name
  • Update Time : শুক্রবার, ১৮ জুন, ২০২১
  • ৬৮ Time View

আর্জেন্টাইন ফুটবল কিংবদন্তি দিয়েগো ম্যারাডোনার মৃত্যু রহস্যের তদন্তে প্রতিবারই নিচ্ছে নতুন মোড়। এবার ম্যারাডোনার সেবিকাকে জিজ্ঞাসাবাদে বেরিয়ে এলো নতুন তথ্য। সেবিকার আইনজীবীর দাবি, চিকিৎসকদের অবহেলায়ই মৃত্যু হয়েছে ম্যারাডোনার।

মস্তিষ্কে অস্ত্রোপচার ও নানাবিধ শারীরিক জটিলতা নিয়ে গত বছর নভেম্বরে ৬০ বছর বয়সে মারা যান ৮৬ বিশ্বকাপের কিংবদন্তি ম্যারাডোনা। ম্যারাডোনার মস্তিস্কে অস্ত্রোপচারের চিকিৎসায় নিয়োজিত ছিলেন নিউরোসার্জন লিওপোল্ড লুকু। ম্যারাডোনার মৃত্যুর পর এই চিকিৎসকের বিরুদ্ধে অভিযোগ তোলেন তাঁর দুই মেয়ে। শুরু হয় তদন্ত। এই তদন্তের আওতাধীন রয়েছেন দাহিয়ানা গিজেলা মাদ্রিদ নামের এক নার্স।

মামলাটি আদালতে ওঠার পর ২০ জন বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক মিলে একটি বোর্ড গঠন করা হয়। অভিযুক্তরা দোষী প্রমাণিত হলে ৮ থেকে ২৫ বছরের সাজা হতে পারে।

ম্যারাডোনাকে মৃত দেখা ব্যক্তিদেরও একজন গিজেলা মাদ্রিদ। তাঁর আইনজীবী রডোলফো বাকু বলেন, ‘চিকিৎসকরাই ম্যারাডোনাকে হত্যা করেছেন।’

বাকুর দাবি, মস্তিষ্কে অস্ত্রোপচারের পর চিকিৎসকেরা ম্যারাডোনার দেখাশোনা করছিলেন; নার্স গিজেলা মাদ্রিদ নন। একই সমেয় তিনি মনোরোগের ওষুধও খাচ্ছিলেন, যেকারণে তাঁর হৃদযন্ত্রের গতি বেড়ে যায়। ম্যারাডোনা হাসপাতালে একবার পড়েও গিয়েছিলেন, তখন সেবিকা গিজেল তাঁকে স্ক্যান করানোর অনুরোধ করেন। কিন্তু ম্যারাডোনা তা প্রত্যাখ্যান করে বলেন, সংবাদমাধ্যম জানলে বিষয়টি ভালো দেখাবে না।

আইনজীবী বাকু বলেন, ‘ম্যারাডোনা ধীরে ধীরে মৃত্যুর মুখে ঢলে পরায় অনেক সতর্কবার্তা ছিল। চিকিৎসকেরা প্রতিরোধের কোনো ব্যবস্থা নেননি।’

দিনের বেলায় ম্যারাডোনার দেখাশোনা করতেন গিজেলা মাদ্রিদ এবং জীবিত অবস্থায় দেখা শেষ ব্যক্তিদের একজন তিনি।

ম্যারাডোনার মৃত্যুর পরপরই গিজেলা মাদ্রিদ জানান, ম্যারাডোনাকে মৃত অবস্থায় দেখার পর তিনি তাকে বাঁচিয়ে তোলার চেষ্টা করেন, কিন্তু পারেননি।

Please Share This Post in Your Social Media

More News Of This Category

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *