বাংলাদেশে কর্মরত ফ্রিল্যান্সারদের উপার্জিত আয় বিদেশ থেকে দ্রুত নিরাপদ ও নির্বিঘ্নে তাদের নিজ অ্যাকাউন্টে নিয়ে আসতে বিশেষ সেবা ‘আইএফআইসি ফ্রিল্যান্সার সার্ভিস প্যাকেজ’ নিয়ে এলো আইএফআইসি ব্যাংক। একই সঙ্গে তাদের সব ধরনের ব্যাংকিং সেবাও দেওয়া হবে।

এ উপলক্ষে রোববার (৪ সেপ্টেম্বর) দুপুরে রাজধানীর পুরানা পল্টনে অবস্থিত আইএফআইসি টাওয়ারে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন আইএফআইসি ব্যাংক লিমিটেডের চেয়ারম্যান ও প্রধানমন্ত্রীর বেসরকারি শিল্প ও বিনিয়োগ উপদেষ্টা সালমান এফ রহমান, আইএফআইসি ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান নির্বাহী শাহ এ সারওয়ার, বাংলাদেশ ফ্রিল্যান্সার ডেভেলপমেন্ট সোসাইটির চেয়ারম্যান ড. তানজিবা রহমান, বাংলাদেশ হাইটেক পার্কের ব্যবস্থাপনা পরিচালক বিকর্ণ কুমার ঘোষসহ, আইএফআইসি ব্যাংকের কর্মকর্তা, বাংলাদেশ ফ্রিল্যান্সার ডেভেলপমেন্ট সোসাইটির (বিএফডিএস) প্রতিনিধি, ফ্রিল্যান্সারসহ অনেকে।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে সালমান এফ রহমান বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এবং তার আইসিটি উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয়ের প্রচেষ্টায় আজ বাংলাদেশ ডিজিটাল বাংলাদেশে পরিণত হয়েছে। কোভিড-১৯ মহামারীর সময়ে যখন বিশ্বের অনেক উন্নত দেশ হিমশিম খাচ্ছিল, তখন আমরা টিকে থাকতে পেরেছি। কারণ আমরা ডিজিটাল দেশে পরিণত হতে পেরেছি। এখন আমাদের স্মার্ট বাংলাদেশ হওয়ার সময়, চতুর্থ ইন্ডাস্ট্রিয়াল বিপ্লব হতে চলেছে।

তিনি আরও বলেন, আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স, অ্যাডভান্স রোবোটিক্স, ইন্টার্নেট অব থিংস, মেশিন লার্নিং ইত্যাদি প্রযুক্তির ব্যাপারে আমাদের প্রস্তুত হতে হবে। এ ক্ষেত্রে ফ্রিল্যান্সারদের গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রয়েছে। আগে ফ্রিল্যান্সারদের সামাজিক স্বীকৃতি ছিল না। আমি প্রধানমন্ত্রীর আদেশক্রমে এবং আইসিটি বিভাগ ও বিভাগের প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলকের সহযোগিতায় এ লক্ষ্যে কাজ করেছি এবং তাদের একটি আইডি সিস্টেম চালু করতে সক্ষম হয়েছি।

তিনি বলেন, আজ এ অ্যাকাউন্টের মাধ্যমে ফ্রিল্যান্সারদের ইনকাম হিস্ট্রি তৈরি হবে, ফলে ফ্রিল্যান্সাররা নানা ব্যাংকিং সুবিধা গ্রহণ করে নিজের এবং দেশের উন্নতি সাধন করতে পারবে। আজকের ফ্রিল্যান্সাররা আগামীর উদ্যোক্তা। সে লক্ষ্যেই সহযোগিতার হাত নিয়ে সব সময় আপনাদের পাশে থাকবে আইএফআইসি ব্যাংক। আপনাদের পরিশ্রমেই ভবিষ্যতে গার্মেন্টস খাতের মতো আইসিটি খাত থেকে সমান পরিমাণ বৈদেশিক আয় অর্জন করা সম্ভব হবে।

বাংলাদেশ ফ্রিল্যান্সার ডেভেলপমেন্ট সোসাইটির (বিএফডিএস) চেয়ারম্যান ড. তানজিবা রহমান বলেন, আমাদের দেশে প্রায় সাড়ে ছয় লাখ ফ্রিল্যান্সার সক্রিয়ভাবে কাজ করছেন। তাদের অনেকেই উপার্জিত বৈদেশিক আয় দেশে নিজ অ্যাকাউন্টে স্থানান্তর করতে অনেক সময়ই সমস্যার সম্মুখীন হয়ে থাকেন। আশা করছি ‘আইএফআইসি ফ্রিল্যান্সার সার্ভিস প্যাকেজ’ চালু হওয়ার ফলে এসব সমস্যা আর থাকবে না।

আইএফআইসি ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান নির্বাহী শাহ এ সারওয়ার বলেন, আমাদের প্রধান লক্ষ্য সর্ব স্তরের মানুষকে ব্যাংকিং সেবার আওতায় নিয়ে আসা। সে ধারাবাহিকতায় এ ফ্রিল্যান্সার ব্যাংকিং প্যাকেজের যাত্রা শুরু হলো। সারাদেশে ১২০০-এরও বেশি আইএফআইসি ব্যাংক শাখা-উপশাখা আছে। কাজেই সারাদেশে ছড়িয়ে থাকা ফ্রিল্যান্সাররা সহজেই এ ব্যাংকিং সুবিধা গ্রহণ করতে পারবেন। এখন উপার্জিত আয় সহজে নিজ ব্যাংক অ্যাকাউন্টে নিয়ে আসার পাশাপাশি নিজ নিজ কাজের প্রয়োজনে ক্রস বর্ডার ই-কমার্স লেনদেন করতে পারবেন সহজে।

আইএফআইসির এ ব্যাংকিং সার্ভিস প্যাকেজে থাকছে এক্সপোর্ট রিটেনশন কোটা (ঊজছ) অ্যাকাউন্ট, এ ঊজছ অ্যাকাউন্টের ইউএস ডলারের বিপরীতে ফ্রিল্যান্সাররা পাবেন ভিসা ইন্টারন্যাশনাল ডেবিট কার্ড এবং আইএফআইসি আমার অ্যাকাউন্ট, যার বিপরীতে পাবেন আইএফআইসি আমার কার্ড-ভিসা ইন্টারন্যাশনাল ক্রস কারেন্সি ডেবিট কার্ড।

দেশজুড়ে ১২০০ থেকে বেশি আইএফআইসি ব্যাংক শাখা-উপশাখায় পাবেন ওয়ান স্টপ সার্ভিস সুবিধা এবং ফ্রিল্যান্সারদের জন্য ডেডিকেটেড সার্ভিস কাউন্টার। পাবেন নিজ ব্যাংক অ্যাকাউন্ট থেকে সরাসরি বিকাশ, নগদ ইত্যাদি এমএফএস লেনদেনের সুবিধা। জমানো টাকায় দৈনিক হারে এফডিআরের মতো আর্কষণীয় মুনাফা পাবেন ও মাস শেষে তা উত্তোলন করতে পারবেন। প্রয়োজনে পাবেন তাৎক্ষণিক ঋণ সুবিধা। আইএফআইসি আমার কার্ড দিয়ে সারা দেশে যেকোনো ব্যাংকের এটিএম থেকে টাকা উত্তোলন করতে পারবেন একদম ফ্রি।

Spread the love