Dhaka 7:15 pm, Wednesday, 24 April 2024

চট্টগ্রামে ইলেকট্রনিকস ব্যবসায়ীর ২.০৩ কোটি টাকার ভ্যাট ফাঁকি উদঘাটন

  • Reporter Name
  • Update Time : 01:43:55 pm, Sunday, 17 January 2021
  • 2476 Time View

এনবি নিউজঃ ভ্যাট গোয়েন্দার একটি তদন্ত দল চট্টগ্রামের একটি ইলেকট্রনিকস ব্যবসায় ২.০৩ কোটি টাকার ভ্যাট ফাঁকি উদঘাটন করেছে। এতে দেখা যায়, প্রতিষ্ঠানটি স্থানীয় ভ্যাট অফিসে প্রকৃত বিক্রয় হিসাব গোপন রেখে কম হিসাব প্রদর্শন করেছে। প্রতিষ্ঠানটি হলো এসি বাজার লিমিটেড, সোনারপাড়া, সীতাকুন্ড, চট্টগ্রাম। প্রতিষ্ঠানটি এসি, ফ্রিজ,রেফ্রিজারেটর,হিটার,ওয়াশিং মেশিনসহ বিভিন্ন ধরনের ইলেকট্রনিকস সামগ্রী তৈরি, সংযোজন ও আমদানি করে থাকে।

 

ভ্যাট গোয়েন্দা সুত্র জানায়, তারা একটি অভিযোগের ভিত্তিতে এই তদন্ত পরিচালনা করে। সংস্থার পরিচালক মুহাম্মদ মহি উদ্দিন  তদন্তে নেতৃত্ব দেন। তদন্ত অনুসারে এসি বাজার ২০১৪ থেকে ২০১৯ পর্যন্ত মোট ১২১,১৫,৮৭,৩৫৭ টাকার পণ্য সরবরাহ করে। তদন্তে দেখা যায়, এই সময়ে তাদের প্রকৃত বিক্রয় ১২৪,৭৭,০৯,৮৫৮  টাকা। এই বিক্রয় গোপন রাখায় এসি বাজার ভ্যাট ফাঁকি দিয়েছে ৫৪,১৮,৩৭৫ টাকা। অন্যদিকে, লিমিটেড কোম্পানির বিভিন্ন ধরনের ব্যয়ের উপর ভ্যাট প্রযোজ্য হলেও তা যথাযথভাবে পরিশোধ করা হয়নি।

সুত্র আরও জানায়, এতে ভ্যাট ফাঁকি হয়েছে ৬২.৬০ লাখ টাকা। উভয় ক্ষেত্রে সময়মতো ভ্যাট পরিশোধ না করায় ভ্যাট আইন অনুযায়ী ২% হারে সুদ আরোপ হবে মোট ৮৫.৭৬ লাখ টাকা।মোট ভ্যাট ফাঁকি হয়েছে ১.১৭ কোটি ও সুদসহ ২.০৩ কোটি টাকা আদায়যোগ্য হয়েছে। তদন্ত প্রতিবেদনটি আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করার জন্য চট্টগ্রাম ভ্যাট কমিশনারের নিকট প্রেরণ করা হয়েছে। —

Tag :

Write Your Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Save Your Email and Others Information

চট্টগ্রামে ইলেকট্রনিকস ব্যবসায়ীর ২.০৩ কোটি টাকার ভ্যাট ফাঁকি উদঘাটন

Update Time : 01:43:55 pm, Sunday, 17 January 2021

এনবি নিউজঃ ভ্যাট গোয়েন্দার একটি তদন্ত দল চট্টগ্রামের একটি ইলেকট্রনিকস ব্যবসায় ২.০৩ কোটি টাকার ভ্যাট ফাঁকি উদঘাটন করেছে। এতে দেখা যায়, প্রতিষ্ঠানটি স্থানীয় ভ্যাট অফিসে প্রকৃত বিক্রয় হিসাব গোপন রেখে কম হিসাব প্রদর্শন করেছে। প্রতিষ্ঠানটি হলো এসি বাজার লিমিটেড, সোনারপাড়া, সীতাকুন্ড, চট্টগ্রাম। প্রতিষ্ঠানটি এসি, ফ্রিজ,রেফ্রিজারেটর,হিটার,ওয়াশিং মেশিনসহ বিভিন্ন ধরনের ইলেকট্রনিকস সামগ্রী তৈরি, সংযোজন ও আমদানি করে থাকে।

 

ভ্যাট গোয়েন্দা সুত্র জানায়, তারা একটি অভিযোগের ভিত্তিতে এই তদন্ত পরিচালনা করে। সংস্থার পরিচালক মুহাম্মদ মহি উদ্দিন  তদন্তে নেতৃত্ব দেন। তদন্ত অনুসারে এসি বাজার ২০১৪ থেকে ২০১৯ পর্যন্ত মোট ১২১,১৫,৮৭,৩৫৭ টাকার পণ্য সরবরাহ করে। তদন্তে দেখা যায়, এই সময়ে তাদের প্রকৃত বিক্রয় ১২৪,৭৭,০৯,৮৫৮  টাকা। এই বিক্রয় গোপন রাখায় এসি বাজার ভ্যাট ফাঁকি দিয়েছে ৫৪,১৮,৩৭৫ টাকা। অন্যদিকে, লিমিটেড কোম্পানির বিভিন্ন ধরনের ব্যয়ের উপর ভ্যাট প্রযোজ্য হলেও তা যথাযথভাবে পরিশোধ করা হয়নি।

সুত্র আরও জানায়, এতে ভ্যাট ফাঁকি হয়েছে ৬২.৬০ লাখ টাকা। উভয় ক্ষেত্রে সময়মতো ভ্যাট পরিশোধ না করায় ভ্যাট আইন অনুযায়ী ২% হারে সুদ আরোপ হবে মোট ৮৫.৭৬ লাখ টাকা।মোট ভ্যাট ফাঁকি হয়েছে ১.১৭ কোটি ও সুদসহ ২.০৩ কোটি টাকা আদায়যোগ্য হয়েছে। তদন্ত প্রতিবেদনটি আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করার জন্য চট্টগ্রাম ভ্যাট কমিশনারের নিকট প্রেরণ করা হয়েছে। —