Dhaka 8:42 am, Wednesday, 24 April 2024

সংক্রমণ বাড়লে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার সিদ্ধান্ত পুনর্বিবেচনা করা হবে : শিক্ষামন্ত্রী

  • Reporter Name
  • Update Time : 03:54:37 am, Saturday, 13 March 2021
  • 277 Time View

এনবি নিউজ : করোনাভাইরাসের সংক্রমণের ঊর্ধ্বগতি অব্যাহত থাকলে পর্যবেক্ষণের ভিত্তিতে এবং জাতীয় পরামর্শক কমিটির সঙ্গে  আলোচনা সাপেক্ষে সরকার শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার ব্যাপারে সিদ্ধান্ত গ্রহণ করবে বলে জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি। তিনি বলেন, যদি সংক্রমণ বাড়তে থাকে তবে ৩০ মার্চ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার সিদ্ধান্তে পরিবর্তন আসতে পারে। তবে এ ব্যাপারে এখনো সিদ্ধান্ত হয়নি। পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করা হচ্ছে। সিদ্ধান্ত পরিবর্তন হলে অবশ্যই জানিয়ে দেব।

গতকাল শুক্রবার রাজধানীর সেগুনবাগিচায় আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা ইনস্টিটিউটে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি এ কথা বলেন।

শিক্ষামন্ত্রী বলেন, এখন পর্যন্ত যে সময় দেওয়া আছে তাতে মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিকের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলো ৩০ মার্চ খোলার কথা। আর বিশ্ববিদ্যালয়ে পর্যায়ে খোলার কথা ২৪ মে থেকে এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের হলগুলো খোলার কথা ১৭ মে থেকে। আমরা বরাবরের মতো গত এক বছর যেমন করেছি- এখনো প্রতিদিনই পর্যবেক্ষণ করছি। আমাদের শিক্ষার্থীদের, শিক্ষকদের, কর্মচারীদের এবং অভিভাবকদের স্বাস্থ্যঝুঁকি এবং সার্বিক নিরাপত্তার বিষয়টি আমরা সবচেয়ে বিবেচনায় নিয়ে সিদ্ধান্ত নেব। কাজেই আমরা পর্যবেক্ষণ করছি।

ডা. দীপু মনি আরও বলেন, ‘মাননীয় প্রধানমন্ত্রীও বলেছিলেন এই মার্চ মাসেই গত বছর সংক্রমণ হয়েছিল এবং এরপরে বেড়েছিল। কাজেই যদি আমরা দেখি এখনো একটু মনে হচ্ছে ঊর্ধ্বগতি, টিকা এসে যাওয়াতে হয়তো আমাদের সবার মধ্যে কিছুটা শৈথিল্য ভাব দেখা গিয়েছিল। আশা করি, এই যে আবার একটু বাড়ছে, তাতে সবাই আবার সচেতন হবেন। সবাই ভালোভাবে, পাকাপোক্তভাবে স্বাস্থ্যবিধি মানবেন এবং এটি বাড়বে না।

বাংলাদেশে গত বছরের ৮ মার্চ প্রথম করোনা রোগী শনাক্ত হয়। এরপর ১৭ মার্চ থেকে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষণা করে সরকার। পরবর্তীতে সেই ছুটি কয়েক ধাপে বাড়ানোর পর সর্বশেষ আগামী ৩০ মার্চ মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক খোলার তারিখ ঠিক করে সরকার।

এদিকে, আগামী ২৪ মে থেকে দেশের সব বিশ্ববিদ্যালয়ে ক্লাস শুরু করার সিদ্ধান্তের কথা জানিয়েছে সরকার। সেই সঙ্গে ১৭ মে থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ের সব আবাসিক হল খুলে দেওয়ারও ঘোষণা দেওয়া হয়েছে।

Tag :

Write Your Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Save Your Email and Others Information

সংক্রমণ বাড়লে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার সিদ্ধান্ত পুনর্বিবেচনা করা হবে : শিক্ষামন্ত্রী

Update Time : 03:54:37 am, Saturday, 13 March 2021

এনবি নিউজ : করোনাভাইরাসের সংক্রমণের ঊর্ধ্বগতি অব্যাহত থাকলে পর্যবেক্ষণের ভিত্তিতে এবং জাতীয় পরামর্শক কমিটির সঙ্গে  আলোচনা সাপেক্ষে সরকার শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার ব্যাপারে সিদ্ধান্ত গ্রহণ করবে বলে জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি। তিনি বলেন, যদি সংক্রমণ বাড়তে থাকে তবে ৩০ মার্চ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খোলার সিদ্ধান্তে পরিবর্তন আসতে পারে। তবে এ ব্যাপারে এখনো সিদ্ধান্ত হয়নি। পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করা হচ্ছে। সিদ্ধান্ত পরিবর্তন হলে অবশ্যই জানিয়ে দেব।

গতকাল শুক্রবার রাজধানীর সেগুনবাগিচায় আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা ইনস্টিটিউটে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি এ কথা বলেন।

শিক্ষামন্ত্রী বলেন, এখন পর্যন্ত যে সময় দেওয়া আছে তাতে মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিকের শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলো ৩০ মার্চ খোলার কথা। আর বিশ্ববিদ্যালয়ে পর্যায়ে খোলার কথা ২৪ মে থেকে এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের হলগুলো খোলার কথা ১৭ মে থেকে। আমরা বরাবরের মতো গত এক বছর যেমন করেছি- এখনো প্রতিদিনই পর্যবেক্ষণ করছি। আমাদের শিক্ষার্থীদের, শিক্ষকদের, কর্মচারীদের এবং অভিভাবকদের স্বাস্থ্যঝুঁকি এবং সার্বিক নিরাপত্তার বিষয়টি আমরা সবচেয়ে বিবেচনায় নিয়ে সিদ্ধান্ত নেব। কাজেই আমরা পর্যবেক্ষণ করছি।

ডা. দীপু মনি আরও বলেন, ‘মাননীয় প্রধানমন্ত্রীও বলেছিলেন এই মার্চ মাসেই গত বছর সংক্রমণ হয়েছিল এবং এরপরে বেড়েছিল। কাজেই যদি আমরা দেখি এখনো একটু মনে হচ্ছে ঊর্ধ্বগতি, টিকা এসে যাওয়াতে হয়তো আমাদের সবার মধ্যে কিছুটা শৈথিল্য ভাব দেখা গিয়েছিল। আশা করি, এই যে আবার একটু বাড়ছে, তাতে সবাই আবার সচেতন হবেন। সবাই ভালোভাবে, পাকাপোক্তভাবে স্বাস্থ্যবিধি মানবেন এবং এটি বাড়বে না।

বাংলাদেশে গত বছরের ৮ মার্চ প্রথম করোনা রোগী শনাক্ত হয়। এরপর ১৭ মার্চ থেকে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষণা করে সরকার। পরবর্তীতে সেই ছুটি কয়েক ধাপে বাড়ানোর পর সর্বশেষ আগামী ৩০ মার্চ মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক খোলার তারিখ ঠিক করে সরকার।

এদিকে, আগামী ২৪ মে থেকে দেশের সব বিশ্ববিদ্যালয়ে ক্লাস শুরু করার সিদ্ধান্তের কথা জানিয়েছে সরকার। সেই সঙ্গে ১৭ মে থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ের সব আবাসিক হল খুলে দেওয়ারও ঘোষণা দেওয়া হয়েছে।