Dhaka 11:15 pm, Tuesday, 16 April 2024

চোখে স্বপ্ন আর মুখে হাসির আরেক নাম আমাদের মুজিববর্ষ ভিলেজ: 

  • Reporter Name
  • Update Time : 07:59:32 am, Friday, 22 January 2021
  • 230 Time View

নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জের মুড়াপাড়ায় শীতলক্ষ্যা নদীর তীরে গড়ে তোলা নতুন এই গ্রামের নাম ‘মুজিববর্ষ ভিলেজ’। শনিবার থেকে ভূমিহীন-গৃহহীন ২০টি পরিবারের ঠিকানা হবে এই গ্রাম। ২ শতাংশ খাস জমিসহ দুটি কক্ষ, একটি শৌচাগার, একটি গোসলখানা, রান্নাঘর আর একটি বারান্দাসহ সুন্দর একেকটি বাড়ি তারা তারা পাচ্ছেন।

মুরাপাড়ার মুজিববর্ষ ভিলেজে বাড়ি পেয়েছেন রূপগঞ্জের বামনগাঁও এলাকার রুনা বেগম। শেষ জীবনে এসে নিজের একটি ঠিকানা পাওয়ার আনন্দে তার কণ্ঠ ছিল বাষ্পরুদ্ধ। এনবি নিউজকে বললেন, “খুব ভাল লাগছে। এত সুন্দর বাড়ি পামু কোনদিন ভাবি নাই। দেশের মাতা শেখ হাসিনা এই বাড়ি দিছে, নামাজ পইড়া সারা জীবন তেনার জন্য দোয়া করুম।”

ইকবাল হাসান পেশায় মশারির কারিগর। সামান্য যা আয় করতেন তার বেশিরভাগই চলে যেত বাড়ি ভাড়ায়। এবার উপহার হিসেবে বাড়ি পাওয়ায় খেয়ে-পরে ভালোভাবে চলতে পারবেন বলে তার বিশ্বাস। বাড়ি উপহার পাওয়ায় প্রধানমন্ত্রীর প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়েছেন তিনি। রূপগঞ্জের খুশি বেগমের স্বামী পেশায় রাজমিস্ত্রী, সারা জীবন মানুষের ঘর তৈরি করলেও নিজেদের থাকতে হয়েছে অন্যের ঘরে। উপহার হিসেবে বাড়ি পেয়ে খুশি বেগম এবার সত্যি খুশি।

কিশোরগঞ্জের আমেনার বাড়ি ঘোড়াউত্রা নদীতে বিলীন হওয়ার পর আবার তিনি ঘর বেঁধেছিলেন নদীর তীরে। সে ঘরও ভেঙে কেড়ে নেয় নদী। স্থানীয় একটি চাতালে কাজ নেওয়ার পর সেখানকার ছোট্ট কুঠুরিতে সন্তানদের নিয়ে দিন কাটছিল তার। এখন প্রধানমন্ত্রীর কাছ থেকে ঘর উপহার পেয়ে আমেনা বললেন, “জীবনেও ভাবছি না এরহম বাড়ি পাইবাম, আল্লাহ ফিরে তাহাইছে, শেহের বেটি ঘর দিছে, খুব খুশি হইছি।”

কিশোরগঞ্জের মাছুম মিয়া নৌকা চালান ঘোড়াউত্রা নদীতে। সাত বছর আগে সে নদীতেই বিলীন হয়েছিল তার মাথা গোঁজার ঠাঁইটুকু। মাছুম এনবি নিউজকে বললেন “কোনো দিনই কল্পনা করতে পারছি না আবার বাড়ি পাইবাম। শেখ হাসিনা সেই বাড়ি আবার ফিরাইয়া দিল, শেখ হাসিনা দীর্ঘজীবী হউক।”

ঘোড়াউত্রা নদীর ভাঙনে বাড়ি হারানোর পর অসুস্থ স্বামীকে নিয়ে স্থানীয় চেয়াম্যানের জমিতে ঠাঁই পেয়েছিলেন সেলিনা বেগম। এবার নিজেদের বাড়ি হওয়ায় অন্যের জায়গায় আর থাকতে হবে না তাদের।

বাড়ি পাওয়ার আনন্দে নুরেছা বেগমের মুখে লেগে ছিল হাসি। ছোটবেলা থেকেই মানুষের বাড়িতে বাড়িতে জীবন কেটেছে তার। নুরেছার ভাষায়, আল্লাহ এবার ‘চোখ তুলে’ তাকিয়েছেন তার দিকে, ‘উছিলা’ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তার দীর্ঘায়ু কামনা করেন তিনি।

সাহো/২২ জানুয়ারি ২০২১

Tag :

Write Your Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Save Your Email and Others Information

Popular Post

চোখে স্বপ্ন আর মুখে হাসির আরেক নাম আমাদের মুজিববর্ষ ভিলেজ: 

Update Time : 07:59:32 am, Friday, 22 January 2021

নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জের মুড়াপাড়ায় শীতলক্ষ্যা নদীর তীরে গড়ে তোলা নতুন এই গ্রামের নাম ‘মুজিববর্ষ ভিলেজ’। শনিবার থেকে ভূমিহীন-গৃহহীন ২০টি পরিবারের ঠিকানা হবে এই গ্রাম। ২ শতাংশ খাস জমিসহ দুটি কক্ষ, একটি শৌচাগার, একটি গোসলখানা, রান্নাঘর আর একটি বারান্দাসহ সুন্দর একেকটি বাড়ি তারা তারা পাচ্ছেন।

মুরাপাড়ার মুজিববর্ষ ভিলেজে বাড়ি পেয়েছেন রূপগঞ্জের বামনগাঁও এলাকার রুনা বেগম। শেষ জীবনে এসে নিজের একটি ঠিকানা পাওয়ার আনন্দে তার কণ্ঠ ছিল বাষ্পরুদ্ধ। এনবি নিউজকে বললেন, “খুব ভাল লাগছে। এত সুন্দর বাড়ি পামু কোনদিন ভাবি নাই। দেশের মাতা শেখ হাসিনা এই বাড়ি দিছে, নামাজ পইড়া সারা জীবন তেনার জন্য দোয়া করুম।”

ইকবাল হাসান পেশায় মশারির কারিগর। সামান্য যা আয় করতেন তার বেশিরভাগই চলে যেত বাড়ি ভাড়ায়। এবার উপহার হিসেবে বাড়ি পাওয়ায় খেয়ে-পরে ভালোভাবে চলতে পারবেন বলে তার বিশ্বাস। বাড়ি উপহার পাওয়ায় প্রধানমন্ত্রীর প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়েছেন তিনি। রূপগঞ্জের খুশি বেগমের স্বামী পেশায় রাজমিস্ত্রী, সারা জীবন মানুষের ঘর তৈরি করলেও নিজেদের থাকতে হয়েছে অন্যের ঘরে। উপহার হিসেবে বাড়ি পেয়ে খুশি বেগম এবার সত্যি খুশি।

কিশোরগঞ্জের আমেনার বাড়ি ঘোড়াউত্রা নদীতে বিলীন হওয়ার পর আবার তিনি ঘর বেঁধেছিলেন নদীর তীরে। সে ঘরও ভেঙে কেড়ে নেয় নদী। স্থানীয় একটি চাতালে কাজ নেওয়ার পর সেখানকার ছোট্ট কুঠুরিতে সন্তানদের নিয়ে দিন কাটছিল তার। এখন প্রধানমন্ত্রীর কাছ থেকে ঘর উপহার পেয়ে আমেনা বললেন, “জীবনেও ভাবছি না এরহম বাড়ি পাইবাম, আল্লাহ ফিরে তাহাইছে, শেহের বেটি ঘর দিছে, খুব খুশি হইছি।”

কিশোরগঞ্জের মাছুম মিয়া নৌকা চালান ঘোড়াউত্রা নদীতে। সাত বছর আগে সে নদীতেই বিলীন হয়েছিল তার মাথা গোঁজার ঠাঁইটুকু। মাছুম এনবি নিউজকে বললেন “কোনো দিনই কল্পনা করতে পারছি না আবার বাড়ি পাইবাম। শেখ হাসিনা সেই বাড়ি আবার ফিরাইয়া দিল, শেখ হাসিনা দীর্ঘজীবী হউক।”

ঘোড়াউত্রা নদীর ভাঙনে বাড়ি হারানোর পর অসুস্থ স্বামীকে নিয়ে স্থানীয় চেয়াম্যানের জমিতে ঠাঁই পেয়েছিলেন সেলিনা বেগম। এবার নিজেদের বাড়ি হওয়ায় অন্যের জায়গায় আর থাকতে হবে না তাদের।

বাড়ি পাওয়ার আনন্দে নুরেছা বেগমের মুখে লেগে ছিল হাসি। ছোটবেলা থেকেই মানুষের বাড়িতে বাড়িতে জীবন কেটেছে তার। নুরেছার ভাষায়, আল্লাহ এবার ‘চোখ তুলে’ তাকিয়েছেন তার দিকে, ‘উছিলা’ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তার দীর্ঘায়ু কামনা করেন তিনি।

সাহো/২২ জানুয়ারি ২০২১