ঢাকা ১২:০৩ অপরাহ্ন, রবিবার, ০৯ জুন ২০২৪, ২৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

বাংলাদেশে ব্যবসা করতে চায় অ্যামাজনসহ যুক্তরাষ্ট্রের অনেক কোম্পানি : বাণিজ্য প্রতিমন্ত্রী

  • নিউজ ডেস্ক নিউজ ডেস্ক
  • আপডেট: ১২:২০:১৫ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ২৯ মে ২০২৪
  • ১২

বাংলাদেশে ব্যবসা করতে চায় অ্যামাজনসহ যুক্তরাষ্ট্রের অনেক কোম্পানি : বাণিজ্য প্রতিমন্ত্রী

বাংলাদেশে ব্যবসা করতে চায় অ্যামাজনসহ যুক্তরাষ্ট্রের অনেক কোম্পানি : বাণিজ্য প্রতিমন্ত্রী আহসানুল ইসলাম টিটু

যুক্তরাষ্ট্রের বড় বড় কোম্পানি অ্যামাজন, বোয়িং, শেভরন, কোক, টেলকোসহ বেশকিছু কোম্পানি বাংলাদেশে ব্যবসা করতে চায় বলে জানিয়েছেন বাণিজ্য প্রতিমন্ত্রী আহসানুল ইসলাম টিটু। মঙ্গলবার (২৮ মে) দুপুরে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে যুক্তরাষ্ট্রের উচ্চ পর্যায়ের বাণিজ্য প্রতিনিধিদলের সঙ্গে বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান বাণিজ্য প্রতিমন্ত্রী আহসানুল ইসলাম টিটু।

তিনি আরো বলেন, ‘জাতীয় লজিস্টিক নীতি ২০২৪ মাধ্যমে সেন্টার ওয়্যারহাউস সুবিধা থাকবে, সেখান থেকে অ্যামাজন পণ্য সংগ্রহ করে সেগুলো আঞ্চলিক এবং আন্তর্জাতিকভাবে সাপ্লাই করবে। আমরা সেন্ট্রাল ওয়্যারহাউজের মাধ্যমে গ্লোবাল সাপ্লাই চেইনে যুক্ত হবো। আমদানি করা ইউএস কটন থেকে তৈরি পণ্য কীভাবে সে দেশের বাজারে ঢুকতে পারে সেজন্য তারা কাজ করবেন।’

বাণিজ্য প্রতিমন্ত্রী আহসানুল ইসলাম টিটু আরো বলেন, ‘তারা এ দেশের ই-কমার্স বিজনেস থেকে শুরু করে এ দেশের জ্বালানি নিরাপত্তার বিভিন্ন বিনিয়োগ প্রসঙ্গে কথা বলেছেন। যুক্তরাষ্ট্রের কোম্পানিগুলো বাংলাদেশে যেনো সহজে ব্যবসা করতে পারে সেসব বিষয়ে আলোচনা হয়েছে। আমাদের লক্ষ্য বিনিয়োগের মাধ্যমে কর্মসংস্থান সৃষ্টি করা, এতে বাংলাদেশ এবং যুক্তরাষ্ট্রের সম্পর্ক আরো শক্তিশালী হবে।’

বৈঠকে এফবিসিসিআই এর প্রেসিডেন্ট মাহবুবুল আলমসহ অন্যান্য ব্যবসায়ী সংগঠনের প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন। এসময় দেশীয় হস্তশিল্পের বিভিন্ন পণ্য প্রদর্শনী করা হয়।

বাণিজ্য প্রতিমন্ত্রী আরো বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী’র নেতৃত্বে বাংলাদেশ এলডিসি উত্তরণ হতে যাচ্ছে। ২০২৪ থেকে ২০২৬ এ দুই বছরের মধ্য বিভিন্ন দেশের মার্কেটে অ্যাকসেস পেতে মন্ত্রণালয় এখন কাজ করছে। তাদের মাধ্যমে আমাদের নতুন বাজার সম্প্রসারণ এবং নতুন কোম্পানি এ দেশে আসার পথ উন্মুক্ত হবে।’

এদিকে বাণিজ্য প্রতিমন্ত্রী আহসানুল ইসলাম টিটুর সঙ্গে আজ রাশিয়ার ট্রেড কমিশনার ডক্টর আলেকজান্ডার রাইবাস এর নেতৃত্বে একটি প্রতিনিধি দল সৌজন্য সাক্ষাৎ করেন। এসময় টেলিকমিউনিকেশন, অফসোর ব্যাংকিং সুবিধাসহ বাণিজ্য-বিনিয়োগ সম্প্রসারণের বিভিন্ন বিষয়ে আলাপ করা হয়।

সর্বাধিক পঠিত

ঈদুল আজহায় সরকারি চাকরিজীবীদের টানা ৫ দিনের ছুটি

বাংলাদেশে ব্যবসা করতে চায় অ্যামাজনসহ যুক্তরাষ্ট্রের অনেক কোম্পানি : বাণিজ্য প্রতিমন্ত্রী

আপডেট: ১২:২০:১৫ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ২৯ মে ২০২৪

বাংলাদেশে ব্যবসা করতে চায় অ্যামাজনসহ যুক্তরাষ্ট্রের অনেক কোম্পানি : বাণিজ্য প্রতিমন্ত্রী আহসানুল ইসলাম টিটু

যুক্তরাষ্ট্রের বড় বড় কোম্পানি অ্যামাজন, বোয়িং, শেভরন, কোক, টেলকোসহ বেশকিছু কোম্পানি বাংলাদেশে ব্যবসা করতে চায় বলে জানিয়েছেন বাণিজ্য প্রতিমন্ত্রী আহসানুল ইসলাম টিটু। মঙ্গলবার (২৮ মে) দুপুরে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে যুক্তরাষ্ট্রের উচ্চ পর্যায়ের বাণিজ্য প্রতিনিধিদলের সঙ্গে বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান বাণিজ্য প্রতিমন্ত্রী আহসানুল ইসলাম টিটু।

তিনি আরো বলেন, ‘জাতীয় লজিস্টিক নীতি ২০২৪ মাধ্যমে সেন্টার ওয়্যারহাউস সুবিধা থাকবে, সেখান থেকে অ্যামাজন পণ্য সংগ্রহ করে সেগুলো আঞ্চলিক এবং আন্তর্জাতিকভাবে সাপ্লাই করবে। আমরা সেন্ট্রাল ওয়্যারহাউজের মাধ্যমে গ্লোবাল সাপ্লাই চেইনে যুক্ত হবো। আমদানি করা ইউএস কটন থেকে তৈরি পণ্য কীভাবে সে দেশের বাজারে ঢুকতে পারে সেজন্য তারা কাজ করবেন।’

বাণিজ্য প্রতিমন্ত্রী আহসানুল ইসলাম টিটু আরো বলেন, ‘তারা এ দেশের ই-কমার্স বিজনেস থেকে শুরু করে এ দেশের জ্বালানি নিরাপত্তার বিভিন্ন বিনিয়োগ প্রসঙ্গে কথা বলেছেন। যুক্তরাষ্ট্রের কোম্পানিগুলো বাংলাদেশে যেনো সহজে ব্যবসা করতে পারে সেসব বিষয়ে আলোচনা হয়েছে। আমাদের লক্ষ্য বিনিয়োগের মাধ্যমে কর্মসংস্থান সৃষ্টি করা, এতে বাংলাদেশ এবং যুক্তরাষ্ট্রের সম্পর্ক আরো শক্তিশালী হবে।’

বৈঠকে এফবিসিসিআই এর প্রেসিডেন্ট মাহবুবুল আলমসহ অন্যান্য ব্যবসায়ী সংগঠনের প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন। এসময় দেশীয় হস্তশিল্পের বিভিন্ন পণ্য প্রদর্শনী করা হয়।

বাণিজ্য প্রতিমন্ত্রী আরো বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী’র নেতৃত্বে বাংলাদেশ এলডিসি উত্তরণ হতে যাচ্ছে। ২০২৪ থেকে ২০২৬ এ দুই বছরের মধ্য বিভিন্ন দেশের মার্কেটে অ্যাকসেস পেতে মন্ত্রণালয় এখন কাজ করছে। তাদের মাধ্যমে আমাদের নতুন বাজার সম্প্রসারণ এবং নতুন কোম্পানি এ দেশে আসার পথ উন্মুক্ত হবে।’

এদিকে বাণিজ্য প্রতিমন্ত্রী আহসানুল ইসলাম টিটুর সঙ্গে আজ রাশিয়ার ট্রেড কমিশনার ডক্টর আলেকজান্ডার রাইবাস এর নেতৃত্বে একটি প্রতিনিধি দল সৌজন্য সাক্ষাৎ করেন। এসময় টেলিকমিউনিকেশন, অফসোর ব্যাংকিং সুবিধাসহ বাণিজ্য-বিনিয়োগ সম্প্রসারণের বিভিন্ন বিষয়ে আলাপ করা হয়।